বার্নলিকে হারিয়ে লিভারপুলকে টপকে শীর্ষে ইউনাইটেড

বার্নলিকে হারিয়ে লিভারপুলকে টপকে প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। প্রতিপক্ষের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছে উলে গুনার সুলশারের দল। প্রতিযোগিতার সফলতম দলটির এটি টানা তৃতীয় জয়।

টার্ফ মুরের দিকে নিশ্চয় তাকিয়ে কোটি রেড ডেভিল ভক্ত। এমন একটা ম্যাচে দলটা সাজাতে ক্ষুরদার মাথাটাই খাটালেন ওলেগানার সুলশার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এডিনসন কাভানি ফেরায় আক্রমণভাগটা সাজানো সহজই হয়েছে ইংলিশ গুরুর। যদিও এদিন কিছুটা অচেনা রূপেই ছিলেন উরুগুইয়ান তারকা।

১৬ নম্বরে থাকা বার্নলের বিপক্ষে শুরু থেকে স্বভাবতই আক্রমণের পসরা সাজিয়েছে রেড ডেভিলরা। যদিও রক্ষণাত্মক দ্য ক্ল্যাটসদের রক্ষণ দূর্গ ভাঙ্গতে ব্যর্থ হচ্ছিল ইউনাইটেড শিবির। দারুণ কিছু আক্রমণ ভেস্তে গেছে গোলরক্ষকের বিশ্বস্থতায়। তবে ৩৬ মিনিটে জালটা কাঁপিয়ে ছিলেন ম্যানচেস্টার দলপতি হ্যারি মাগুয়ের। কিন্তু ভিএআরে বাতিল হলো সেই গোল।

৪৫ মিনিটে মার্শিয়ালের দূরপাল্লার শট ফেরান গোলরক্ষক। ফলে লিডহীনতার আক্ষেপে বিরতিতে যেতে হয় রেড ডেভিলদের। আক্রমণে ধার বাড়ে দ্বিতীয়ার্ধ থেকে। কাভানি, র‌্যাশফোর্ড, ফার্নান্দেজ আর পগবাদের সামলাতে ব্যস্ত থাকতে হয়েছে বার্নলের রক্ষণকে। যদিও শেষ রক্ষা হয়নি।

ডেড লকটা ভাঙ্গে ম্যাচে ৭১ মিনিটে। র‌্যাশফোর্ডের দেয়া বল থেকে দুরন্ত শটে ক্ল্যাটসদের রক্ষণকে বোকা বানিয়ে পল পগবা নাম লেখান স্কোর শিটে। ম্যানচেস্টারের ক্লাবটির ১-০ গোলের আধিপত্য ম্যাচে।

এরপর বাকি সময়টায় বেশ কিছু আক্রমণ ছিল চোখে পড়ার মতো। কিন্তু টেবিল টপারদের আর লিডটা বড় করা হয়নি। যদিও একটা ভাল সুযোগ তৈরি করে ছিল বার্নলে। শেষ পর্যন্ত ঘরের মাঠে পরাজয়টাই মানতে হয়েছে ক্ল্যাটসদের। সেই সাথে টেবিলের শীর্ষস্থানে একক আধিপত্য বসালো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

১৭ ম্যাচে ১১ জয় ও তিন ড্রয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ইউনাইটেড। সমান ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে নেমে গেছে শিরোপাধারী লিভারপুল।

উলভারহ্যাম্পটন ওয়ানডারার্সকে ২-১ গোলে হারানো এভারটন ৩২ পয়েন্ট নিয়ে চারে আছে। সমান পয়েন্ট নিয়ে তিনে লেস্টার সিটি। ১৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে ১৬তম স্থানে আছে বার্নলি।