দেশের চার মোবাইল অপারেটরের কাছে বিটিআরসির বকেয়া ১৩ হাজার কোটি টাকা

৩১

দেশের চার মোবাইল অপারেটরের কাছে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) বকেয়া ১৩ হাজার ২২ কোটি ৩৮ লাখ ৬৫ হাজার ৯৩৪ টাকা। অপারেটরগুলো হল- গ্রামীণফোন, রবি, সিটিসেল (বর্তমানে বন্ধ) এবং রাষ্ট্রায়ত্ত্ব টেলিটক।

এদের মধ্যে গ্রামীণফোন ও রবির কাছে বকেয়া অডিট আপত্তি সংক্রান্ত। আর সিটিসেলের বকেয়া উচ্চ আদালত নির্ধারিত ও টেলিটকের কাছে পাবে থ্রি-জি তরঙ্গ বরাদ্দ বাবদ।

রোববার বিকেলে একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনে মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তরের সময় এ তথ্য জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

সরকারি দলের এমপি বেনজীর আহমদের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বিটিআরসি কর্তৃক সরকারি রাজস্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মোবাইল অপারেটরগুলো নিয়মিত অডিট করা হয়। এরই মধ্যে গ্রামীণ ফোন লিলিমিটেড ও রবি আজিয়াটা লিমিটেডে অডিট কার্যক্রম শেষ হয়েছে।

অডিট রিপোর্ট অনুযায়ী, বর্তমানে চালু ফোন কোম্পানিগুলোর মধ্যে সিটিসেলের কাছে ১২৮ কোটি টাকার রাজস্ব বকেয়া রয়েছে। এছাড়া গ্রামীণ ফোন লিমিটেডের কাছে অডিট আপত্তির পরিমাণ ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা, রবি আজিয়াটার কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা।

আর রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের নিকট থ্রিজি স্পেকট্রাম অ্যাসাইনমেন্ট ফি বাবদ এক হাজার ৫৮৫ কোটি ১৩ লাখ টাকার অডিট আপত্তি রয়েছে। বাংলালিংক কমিউনিকেশন লিমিটেড ও এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড মোবাইল অপারেটর দুইটির অডিট কার্যক্রম শুরুর লক্ষ্যে অডিটর নিয়োগের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মন্ত্রী জানান, আপত্তিকৃত অর্থ পরিশোধের জন্য গ্রামীণ ফোন ও রবি আজিয়াটাকে ইতোমধ্যে চিঠি দেয়া হয়েছে।