​সোমবার থেকে অনুমতি ছাড়া ভ্রমণে বৃটিশদের জরিমানা

আগামী সোমবার (৮ই মার্চ) থেকে আন্তর্জাতিক ভ্রমণের সময় বৃটেনের যে কেউ তিন পৃষ্ঠার একটি ফরম পূরণ করে তা সাথে রাখতে হবে। ফর্মে বিবরণ দিতে হবে তিনি কেন দেশ ত্যাগ করছেন। এই ফরম পূরণের অর্থ হলো, তিনি কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে রাখবেন যে তিনি লকডাউনের নিয়মানুসারে ভ্রমণের অনুমতি রয়েছে।

ফরম পূরণ করার পর তা ডাউনলোড করে অথবা মোবাইলে সঙ্গে রাখতে হবে। ভ্রমণকারী যাত্রীরা যথাযথভাবে ফরমটি পূরণ করেছেন কি না, তা ভ্রমণের আগে নিশ্চিত করবে কর্তৃপক্ষ। যদি কোন যাত্রী কোন কারণে তা প্রদর্শনে ব্যর্থ হন, তাহলে তার ভ্রমণ বাতিল করা হবে এবং জরিমানার মুখোমুখি হতে হবে। বিমান সংস্থা বোডিংয়ের আগে ফরমগুলো সম্পূর্ণ হয়েছে কি না তা চেক করবে।

শুক্রবার দেশটির সরকারি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ঘোষণায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, আগামী ৮ই মার্চ থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে যাত্রা করার আগে তাদের ফরমটি বহন করা বাধ্যতামূলক।

আরো বলা হয়, দেশটির স্থলবন্দর ও বিমানবন্দরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। যারা যাত্রীদের কাছে এই ফরমটি আছে কি না তা চেক করার ক্ষমতা রাখবেন। কোন যাত্রী দেখাতে ব্যর্থ হলে অপরাধ হিসাবে বিবেচিত হবে এবং ২০০ শত পাউন্ড থেকে ৬,৪০০ শত পাউন্ড পর্যন্ত জরিমানার সম্মুখীন হতে পারেন।

বৃটেনে এখনও ‘স্টে অ্যাট হোম’ (বাড়িতে থাকার নিয়ম) বহাল রেখেছে সরকার। যার ফলে স্বেচ্ছাসেবক, শিক্ষাসবা কাজের জন্য বিদেশে বিনা অনুমতিতে ভ্রমণ বেআইনি। সরকারের রোড ম্যাপ অনুযায়ী আগামী ১৭ই মের পরে বিদেশে ভ্রমণের অনুমতি রয়েছে।