নিগারের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের টানা দ্বিতীয় জয়

১০

নারী ইমার্জিং দল প্রথম ওয়ানডেতে সহজ জয় তুলে নিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও বাংলাদেশকে সহজ জয় পাইয়ে দিয়েছে অধিনায়ক নিগার সুলতানার শতক। তার দুরন্ত সেঞ্চুরিতে ভর করে বাংলাদেশ পেয়েছে ৭ উইকেটের বড় জয়।

টস জিতে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকা ইনিংস শুরু করেছিল দারুণভাবেই। অ্যান্ড্রি স্টেইন ও রবিন সিরলির নৈপুণ্যে ১৮ ওভারেও উইকেটের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। জুটিও পঞ্চাশ পার করে স্বাচ্ছন্দ্যেই।

বাংলাদেশকে প্রথম উইকেটের ছোঁয়া পাইয়ে দেন রিতু। সিরলিকে ফিরিয়ে ভাঙেন ৫৭ রানের জুটি, পরের ওভারে দখল করেন আরও এক উইকেট। এরপর ক্রিস্টি থমসনকেও হারায় সফরকারীরা। ৫৭-০ থেকে মুহূর্তেই ৬৮-৩ হয়ে যায় দলটির স্কোরকার্ড।

এরপরই প্রতিরোধ গড়েন অ্যান্ড্রি স্টেইন ও আন্নেকে বোস। দু’জনের ৭৮ রানের জুটিতে ১৫০ প্রায় ছুঁয়েই ফেলেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপরই যেন ছন্দপতন। সালমা খাতুনের শিকার হয়ে ৮০ রানে ফেরেন স্টেইন। নাহিদার শিকার হয়ে এরপর বোসও ফেরেন অর্ধশতকের একটু আগে। দক্ষিণ আফ্রিকা টেল এন্ডারদের কল্যাণে ১৯৬ রান তুলতে সক্ষম হয় ৮ উইকেট হারিয়ে।

জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশ শুরুতেই হারায় ওপেনার শামিমা সুলতানাকে। বোসের শিকার হয়ে মুর্শিদাও ফেরেন মাত্র ২১ রান করে। আগের ম্যাচে অর্ধশতক পাওয়া ফারজানা হকও যেতে পারেননি বেশি দূর। ফিরেছেন ১৫ রানেই। ৮২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কিছুটা বিপাকেই পড়েছিল বাংলাদেশ। তবে এরপর নিগার আর রুমানার অবিচ্ছিন্ন জুটিতে মেলে মুক্তি। ১৩৫ বলে ১০১ রানের ইনিংস খেলেন নিগার, আর অপরাজিত ৪৫ রান করে রুমানা যোগ্য সঙ্গই দেন তাকে। ফলে বাংলাদেশ পায় ৭ উইকেটের অনায়াস এক জয়।

বৃহস্পতিবার সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। সে ম্যাচে জিতলে দুই ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ হয়ে যাবে বাংলাদেশের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং নারী দল: ৫০ ওভারে ১৯৬/৮ (স্টেইন ৮০, বোস ৪২, জোন্স ১৬*; সালমা ২৩-১, নাহিদা ৩৫-৩, রিতু ২৫-৩)।

বাংলাদেশ ইমার্জিং নারী দল: ৪৫.৩ ওভারে ১৯৭/৩ (মুর্শিদা ২১, নিগার ১০১*, রুমানা ৪৫*; মাথে ৩৬-১, অ্যান্ড্রুস ৩৩-১, বোস ৩১-১)।

ফল: বাংলাদেশ ইমার্জিং নারী দল ৭ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজে ২-০ তে এগিয়ে বাংলাদেশের মেয়েরা।

ম্যাচসেরা: নিগার সুলতানা।