পাসপোর্ট জটিলতায় দেশে আসা হলো না জামালের

14

অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতি কাটিয়ে শুরু হতে যাওয়া প্রিমিয়ার লিগে অংশ নিতে ডেনমার্ক থেকে দেশে ফিরতে চেয়েছিলেন জামাল ভূইয়া। কিন্তু কোপেনহেগেনের বিমানবন্দরে ডেনিস পাসপোর্ট দেখানোর কারণে বোডিং পাস মেলেনি। শেষ পর্যন্ত বিমানবন্দর থেকেই ফিরতে হয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের এই মিডফিল্ডারকে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নতুন করে বেড়ে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বেবিচক। চীন, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, কাতার, সিঙ্গাপুর ও সৌদি আরব-এই সাত দেশ থেকে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দিয়েছে তারা।

বাংলাদেশ ও ডেনমার্কের পাসপোর্ট রয়েছে জামালের। ডেনমার্ক থেকে দুবাই হয়ে রোববার দেশে ফিরতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কোপেনহেগেন বিমানবন্দরে বাংলাদেশ অধিনায়ক ডেনিস পাসপোর্ট প্রদর্শন করায় বিপত্তিটা বাধে। কর্তৃপক্ষ তাকে বিদেশি হিসেবে বিবেচনা করায় অনুমতি মেলেনি বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন সাইফ স্পোর্টিং সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সুমন।

“আমরা যতদূর জানি, বিদেশি নাগরিকদের এখন এই সময়ে আসতে হলে বিশেষ অনুমতি প্রয়োজন। আর জামাল যেহেতু ডেনমার্কের পাসপোর্ট প্রদর্শন করেছে, তাকে বিদেশি নাগরিক হিসেবে দেখা হয়েছে। এ মুহূর্তে ঢাকায় আসার জন্য বিশেষ অনুমতিপত্র ছিল না জামালের সঙ্গে।” “যদি সে বাংলাদেশের পাসপোর্ট প্রদর্শন করতে পারতো তাহলে এই সমস্যা হয়তো হতো না। কিন্তু সে পাসপোর্ট ঢাকাতেই রেখে গেছে। এখন পরবর্তীতে কী হয় তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।” নেপালে ত্রিদেশীয় প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলার পর দেশে ফিরেছিলেন জামাল। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নতুন করে বেড়ে যাওয়ায় চলতি মাসের শুরুর দিকে ছুটি নিয়ে ফিরেছিলেন ডেনমার্কে থাকা পরিবারের কাছে।

আগামী ৩০ এপ্রিল থেকে লিগের দ্বিতীয় ধাপের খেলা শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিলেই মাঠে গড়াবে লিগ। প্রথম পর্ব শেষে ১২ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে সাইফ স্পোর্টিং। কলকাতা মোহামেডানে খেলার কারণে প্রথম ধাপে সাইফের হয়ে খেলতে পারেননি জামাল।