দেশের প্রথম অটোমেটেড ওভার-দ্য-উইকএন্ড ঋণ বিতরণ সম্পন্ন করেছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড

213

আজ ৭ই আগস্ট,রবিবার, ডিস্ট্রিবিউটর ফাইন্যান্স প্রোগ্রামের অধীনের দেশের প্রথম অটোমেটেড ওভার-দ্য-উইকএন্ড ঋণ বিতরণ সম্পন্ন করেছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ। এর ফলে ব্যাংকের গ্রাহকরা সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও ডিস্ট্রিবিউটর ফাইন্যান্সিং লোন গ্রহণ করতে পারবে। প্রথম গ্রাহক হিসেবে নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড এই ঋণ গ্রহণ করে।

দীর্ঘদিন যাবত গ্রাহকরা ছুটির দিনেও ঋণ বিতরণ ব্যবস্থা চালুর চাহিদা প্রকাশ করছিল। কারণ ছুটির দিনগুলোতেও ডিস্ট্রিবিউটরদের পণ্য ডেলিভারি করতে হয়, কিন্তু মূল্য পরিশোধের আগে উৎপাদক-মহল পণ্য সরবরাহে অনীহা প্রকাশ করে। এর ফলে ডিস্ট্রিবিউটরদের সাপ্তাহিক ছুটির আগের দিন, অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ঋণ সংগ্রহ করতে হতো। তবে নতুন এই অটোমেটেড ওভার-দ্য-উইকএন্ড ঋণ বিতরণ ব্যবস্থার মাধ্যমে তারা এখন ছুটির দিনেও প্রয়োজন মতো ঋণ গ্রহণ এবং ব্যাংক ইন্টারেস্টের খরচ বাঁচাতে সক্ষম হবে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ২০১৮ সালে ফ্লেক্সিলোন নামক দেশের প্রথম সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় অনলাইন ডিস্ট্রিবিউটর ফাইন্যান্সিং প্রোগ্রাম চালু করে। ব্যাংকটি এখন আরও উন্নত ব্যবস্থা চালুর মাধ্যমে ছুটির দিনেও ঋণ বিতরণ সম্পন্ন করছে। এই প্রোগ্রামটি সপ্তাহজুড়ে অর্থায়ন নিশ্চিতের মাধ্যমে ক্ষুদ্র-মাঝারি ডিস্ট্রিবিউটরদের ক্ষমতায়নে সাহায্য করবে।

এ প্রসঙ্গে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ-এর হেড অব ট্রান্সেকশন ব্যাংকিং লুথফুল আরেফিন খান বলেন, “গ্রাহকদের ডিস্ট্রিবিউটররা অধিকাংশই ক্ষুদ্র-মাঝারি এন্টারপ্রাইজ (এসএমই) পরিচালনা করে এবং তাদের সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে আমরা ডিস্ট্রিবিউটর ফাইন্যান্সিং প্রোগ্রামটি শুরু করেছি। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে তারা জামানতমুক্ত স্ট্রাকচার ও প্রতিযোগীতামূলক বাজারদর নিশ্চিতের পাশাপাশি আর্থিক শৃঙ্খলা ও সঠিক হিসাবরক্ষণ শিখছে। ঋণ বিতরণ দ্রুততর করতে আমরা সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি স্বয়ংক্রিয় এবং অনলাইনের মাধ্যমে পরিচালনা করছি। সর্বপ্রথম গ্রাহক হিসেবে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ডিস্ট্রিবিউটর ফাইন্যান্সিং লোন গ্রহণ করায় নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড-কে অসংখ্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন।”

নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর দীপাল আবেবিক্রমা বলেন, “গ্রাহক অর্থায়নের অগ্রদূত হিসেবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-এর পাশাপাশি নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড’ও সুপরিচিত। উভয় প্রতিষ্ঠান একত্রে ‘কাস্টমার সেন্ট্রিসিটি’র প্রতি ফোকাস করে আরও একটি উদ্ভাবনী ‘ইন্ডাস্ট্রি ফার্স্ট’ সল্যুশন প্রদান করছে, যা নিয়ে আমি ভীষণ এক্সাইটেড। এই নতুন সল্যুশন আমাদের গ্রাহকদের হাতে উন্নতমানের পণ্য পৌঁছে দিতে এবং গ্রাহক পরিষেবা আরও উন্নত করতে সাহায্য করবে। আমার বিশ্বাস এই দুর্দান্ত সল্যুশন থেকে অন্যান্য এসএমইগুলোও সমানভাবে উপকৃত হবে। ব্যাংকিং সল্যুশনের অগ্রগতিতে নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড-এর পাশে থাকার জন্য স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডকে অসংখ্য ধন্যবাদ।”

দীর্ঘ ১১৭ বছরের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশে নিরবচ্ছিন্ন কার্যক্রম পরিচালনাকারী স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-ই দেশের একমাত্র বহুজাতিক ব্যাংক। বিদ্যুৎ, জ্বালানি, পরিবহন এবং নগর উন্নয়নে বিনিয়োগ সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে দেশের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখতে ব্যাংকটি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। গত বছর, সকল প্রকার আমদানি-রপ্তানি অর্থায়নের এবং বিদেশী ব্যাংক দ্বারা বিদ্যুৎ উৎপাদনের অর্থায়ন ও এসএমই ঋণ নিশ্চিতে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বিশেষ ভূমিকা রেখেছে। একইসাথে কার্ডের মাধ্যমে ব্যয় ও ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের ব্যবহার বৃদ্ধি এবং অসংখ্য উদ্ভাবনী পণ্য বাজারে আনার মাধ্যমে রিটেইল ফাইন্যান্সিংয়ে শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে ব্যাংকটি। বিগত বছরগুলোয় বাংলাদেশে প্রথম গ্রীন বন্ড, প্রথম গ্রীন জিরো-কুপন বন্ড, প্রথম কার্বন নিরপেক্ষ ক্রেডীট কার্ড, প্রথম নির্ভরতা-ভিত্তিক ব্যাংকিং সল্যুশন, প্রথম টেকসই ট্রেড ফাইন্যান্স লেনদেন-এর মতো অসংখ্য ‘প্রথম’-এর সূচনায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড।