ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে ৩০০ পিপিই ও ৩০০ মাস্ক দিলেন ড. যশোধা জীবন দেবনাথ

27

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকার হিমশিম খাচ্ছে। দেশের ডাক্তার-নার্স, সমাজকর্মীরা রোগীদের ঠিকমতো চিকিৎসা সেবা দিতে পারছেন না (পিপিই) পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যূপমেন্ট এর অভাবে।

এমন কঠিন সময়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে এলেন দেশের আরেকজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, শিল্পপতি সিআইপি ড. যশোধা জীবন দেবনাথ। তিনি ২৯ মার্চ সকালে ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ৩০০ পিপিই ও ৩০০ মাস্ক প্রেরণ করেছেন। ফেসবুকে সেই ছবি শেয়ার করে তিনি একথা জানান।

দেশের বিভিন্ন স্থানে ডাক্তাররা আতংকিত অবস্থায় দায়িত্ব পালন করে আসছেন। কোন রোগীর সামনে ভয়ে যেতে পারছেন না তারা, তারপরও স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়েই দেশের লাখ লাখ মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন হাসপাতালের ডাক্তার নার্স থেকে শুরু করে ওয়ার্ডবয় পর্যন্ত। অথচ তাদেরই পিপিই সবার আগে প্রয়োজন ছিলো। দেশে পর্যাপ্ত পিপিই এর অভাব স্পষ্ট হয়ে উঠেছে গত কয়েক দিনে।

এর আগে তিনি তার গাজিপুরের ১০০ রুমের বিশাল রিসোর্ট ও ফরিদপুরের নিজ গ্রামের বাড়িটি করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার স্বার্থে সরকারের কাছে দিতে চেয়ে পত্রিকার শিরোনাম হয়েছেন। ফেসবুকে স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সরকারের কাছে তিনি এ সহযোগীতার কথা জানান।

এবিষয়ে তিনি এর আগে বিজনেস আইকে এক সাক্ষাৎকারে জানান, ফেসবুকে স্ট্যাটাসের পর আমার প্রায় ২০ জন বন্ধু আমার সঙ্গে থেকে সাধারণ মানুষের জন্য সহযোগীতা করতে চেয়েছেন। যদি স্ট্যাটাস না দিতাম তাহলে এভাবে সাড়া পেতাম না। আমার কাছে আজকে প্রায় ৩০০ পিপিই ও ৫০০ মাস্ক এসে পৌছেছে। সেগুলোও আমি আগামীকাল সকালে ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে পৌছে দেয়ার চেষ্টা করবো। আর আমার রিসোর্টটি যদি কোনভাবে দেশের উপকারে আসতো, সরকার কাজে লাগাতো, তাহলে গর্ববোধ করতাম।’বলে মন্তব্য করেন।

বিজনেস আই