আগামী সপ্তাহ বিদেশে কার্গো পরিবহন শুরু করবে ইউএস-বাংলা

12

করোনার কারনে সারাদেশে সাধারণছুটি চলছে। চলছে না কোনো প্রকার যানবাহন। বন্ধ প্রায় সব রকম বানিজ্যিক সার্ভিস। তাই এবার করোনা পরিস্থিতিতে আমদানি-রপ্তানি সচল রাখার জন্য এই এয়ারলাইন্সকে কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে সিভিল এভিয়েশন।
চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য, বিশেষ করে চিকিৎসকদের জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী পিপিই, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড গ্লোভস, মাস্কসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানী করা হবে।

রপ্তানি করা হবে জরুরী রপ্তানী পণ্য, বিশেষ করে গার্মেন্টস পণ্য ও শাক-সবজি।
প্রতিটি এয়ারক্রাফটের কার্গো কম্পাইন্ডে প্রায় ২০ টন কার্গো পরিবহন করা যাবে। বাংলাদেশের সঙ্গে যে সব দেশের কার্গো পরিবহনের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি আছে, ইউএস-বাংলা

এয়ারলাইন্স সেসব দেশে কার্গো পরিবহন করতে পারবে। প্রাথমিকভাবে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, চীন, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, ভারত, কাতার, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে কার্গো পরিবহনের পরিকল্পনা করছে বেসরকারি বিমান পরিবহন সংস্থাটি।

করোনার দুর্যোগ শুরুর পর দেশে একটি মাত্র ফ্লাইট সচল রয়েছে। ইউএস বাংলার এই যাত্রীবাহী ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে চীনের গুয়াংজু শহরে চলাচল করছে।