ম্যারাডোনার জার্সি নিলামে,দাম ৫০ লাখ

7

ইতালির নাপোলিতে করোনার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সহায়তার জন্য ফুটবলের রাজপুত্র আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার জার্সি নিলামে তোলা হয়েছে। জার্সিটি নিলামে তুলেছেন ইতালির সাবেক ফুটবলার সিরো ফেরেরা। ৩৩ বছর ধরে কাছে রাখা জার্সিটি বিক্রি হয়েছে ৫৫ হাজার ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৫০ লাখ টাকা)।

ইতালির হয়ে ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধেই অভিষেক হয়েছিল সিরোর। ১৯৮৭ সালের জুন মাসে একটি আন্তর্জাতিক প্রীতিম্যাচে। তখন থেকেই দু’জনের বন্ধুত্ব। ওই ম্যাচের পরই সিরোর হৃদয় জিতে নিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। কারণ নিজের জার্সি খুলে দিয়েছিলেন ইতালীয়কে। দু’জনের বন্ধুত্ব দৃঢ় হয় নাপোলিতে এক সঙ্গে খেলার সময়। ১৯৮৭ এবং ১৯৯০, এই দু’বছর সিরি ‘এ’ খেতাব জিতেছিল নাপোলি। যে সাফল্যের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছিলেন ম্যারাডোনা এবং ডিফেন্ডার সিরো।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে এই মুহূর্তে ইতালি দিশেহারা। প্রচুর মানুষের মৃতু্য হয়েছে। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তার ওপর গোটা দেশ জুড়ে এখন লকডাউন। বিপদে রয়েছেন মানুষ। পাশে দাঁড়াতেই দীর্ঘদিন ধরে সযত্নে রাখা ম্যারাডোনার জার্সি নিলাম করার সিদ্ধান্ত নেন সিরো। প্রাক্তন সতীর্থের এই উদ্যোগে দারুণ খুশি ম্যারাডোনা।

তিনি ফেসবুকে লেখেন, ‘আমরা আরও একটা ম্যাচ জিতলাম সিরো ফেরেরা। এই জয়টাই সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। এই ম্যাচটাও আমরা জিতলাম কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে, যেমন এর আগেও জিতেছি। এই অসহনীয় পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে এভাবেও থাকতে পারলাম ভেবে সম্মানিত বোধ করছি।’

সিরো জানিয়েছেন, ম্যারাডোনা ছাড়াও আরও কয়েকজন খেলোয়াড়ের বিভিন্ন স্মারক নিলামে উঠেছিল। সবমিলিয়ে সংগৃহীত অর্থের পরিমাণ ৮৫ হাজার ইউরো। এদিকে ঘরবন্দি ম্যারাডোনা বেশ হাঁপিয়ে উঠেছেন। অপেক্ষায় মাঠে ফেরার। ম্যারাডোনার কথায়, ‘মাঠে বেশি দিন যেতে না পারলে মন ছটফট করে। কিন্তু উপায়ও নেই। সারা বিশ্বের পরিস্থিতিই খারাপ।’