hasina

রেকিট বেনকিজারের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

28

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রাসায়নিক খাতের কোম্পানি রেকিট বেনকিজার বাংলাদেশ লিমিটেড চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২০-মার্চ’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।পাশাপাশি  লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। কোম্পানি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়োজিত কোম্পানিটির পর্ষদ সভায় লভ্যাংশের এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। সভায় সর্বশেষ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদন করা হয়।

আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির পণ্য বিক্রির পরিমাণ (Revenue), পরিচালন মুনাফা, নিট মুনাফা, শেয়ার প্রতি আয় -সবই বেড়েছে।

প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে, আলোচিত প্রান্তিকে রেকিট বেনকিজার ১১ কোটি ৩৬ লাখ টাকা নিট মুনাফা করেছে। আগের প্রান্তিকে নিট মুনাফা হয়েছিল ৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ২৪ টাকা ৪ পয়সা। আগের প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছিল ১৫ টাকা ৪৬ পয়সা। সর্বশেষ প্রান্তিকে ইপিএস বেড়েছে প্রায় ৫৫ শতাংশ

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নিট নগদ অর্থের প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ছিল ১০০ টাকা ৬৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে তা ৪৭ টাকা ৬৮ পয়সা ছিল।

গত ৩১ মার্চ, ২০২০ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৬৬ টাকা ৬৮ পয়সা।

কোম্পানিটি গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯ তারিখে সমাপ্ত বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদেরকে ১২৫০ শতাংশ লভ্যাংশ দেবে। আর এর পুরোটাই নগদ লভ্যাংশ। অর্থাৎ শেয়ারহোল্ডাররা ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে ১২৫ টাকা লভ্যাংশ পাবেন।

এটি কোম্পানির ইতিহাসে লভ্যাংশের একটি রেকর্ড। এর আগে কখনোই কোম্পানিটি হাজার শতাংশের বেশি লভ্যাংশ দেয়নি। গত বছর রেকিট বেনকিজার ৭০০ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল। তার আগের বছর ২৭৫ শতাংশ অন্তর্বর্তী লভ্যাংশসহ মোট ৭৯০ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল কোম্পানিটি।

রেকিট বেনকিজারের আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, সর্বশেষ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ১৩১ টাকা ৬ পয়সা।

আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি নগদ অর্থের প্রবাহ (ক্যাশ ফ্লো) ছিল ১৭৬ টাকা ৫৫ পয়সা।
গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯ তারিখে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৪২ টাকা ৬৪ পয়সা।