বিমান চলাচল বন্ধ ১৬ মে পর্যন্ত

20

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে পঞ্চমবারের মতো বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞার সময় বাড়িয়েছে সরকার। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৬ মে পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ ও ইউরোপীয় দেশসমূহসহ আন্তর্জাতিক রুটে সব ধরনের বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ১৬ মে পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে বিমান চলাচল নিষেধাজ্ঞা আগের মতো বাহরাইন, ভুটান, হংকং, ভারত, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, ওমান, কাতার, সউদী আরব, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, ইউএই, ইউকে-এর সাথে বিদ্যমান বিমান চলাচল রুটের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে। একই সাথে অভ্যন্তরীণ যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে বিমান চলাচল নিষেধাজ্ঞা আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।
তবে কার্গো, ত্রাণ-সাহায্য, এয়ার অ্যাম্বুলেন্স, জরুরি অবতরণ ও স্পেশাল ফ্লাইট পরিচালনার কার্যক্রম এই নিষেধাজ্ঞার আওতাভুক্ত নয়। সেগুলো আগের মতোই চালু থাকবে। এখন বাংলাদেশ থেকে শুধু চীনে ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ পঞ্চমবারের মতো বিমান চলাচল স্থগিত করেছে। এর আগে সরকার এটিকে ৩১ মার্চ থেকে ৭ এপ্রিল, ৮ থেকে ১৪ এপ্রিল, ১৫ থেকে ৩০ এপ্রিল এবং তারপর ১ থেকে ৭ মে পর্যন্ত স্থগিত করেছিল। প্রথমে কিছু আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ১৬ মার্চ থেকে স্থগিত করেছিল।
এদিকে যাত্রীবাহী ফ্লাইট বন্ধ থাকলেও বিশেষ ফ্লাইটে করে বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশিরা দেশে ফিরেছেন। একইভাবে বাংলাদেশ থেকে অনেক বিদেশি ঢাকা ছেড়েছেন।

সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ সংক্রমণে ২ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আর আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৩৮ লাখ মানুষ। এতে পৃথিবীর অর্ধেক মানুষ লকডাউনে আটকে থেকে বিশ্ব অর্থনীতিকে ভয়াবহভাবে মন্দার দিকে ঠেলে দিয়েছে। সূত্র : বাসস।