hasina

দেশে ফেরার অপেক্ষায় অ্যান্ড্রু কিশোর

6

দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘ ৮ মাস ধরে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বাংলাদেশের ‘পেস্নব্যাক সম্রাট’ অ্যান্ড্রু কিশোর ইতিমধ্যে তার চিকিৎসার ৯৫ শতাংশ শেষ হয়েছে। গত ৮ মাসে ছয় ধাপে ২৪টি কেমোথেরাপি নিতে হয়েছে তাকে। যার ফলে বর্তমানে বেশ সুস্থ কিংবদন্তি এ গায়ক। গণমাধ্যমকে এসব কথা জানান সংগীতশিল্পী মোমিন বিশ্বাস। তিনি অ্যান্ড্রু কিশোরের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত। মোমিন বলেন, ‘কিশোর দাদা আলস্নাহর রহমতে এখন বেশ ভালো আছেন। তার ৯৫ শতাংশ চিকিৎসা শেষ হয়েছে। আর কেমোথেরাপি লাগবে না। এখন চিকিৎসকদের ফলোআপে আছেন। লকডাউন তুলে দিলেই তিনি দেশে ফিরতে চান।’

গত ৯ সেপ্টেম্বরে ক্যান্সারের চিকিৎসা করাতে সিঙ্গাপুরে যান অ্যান্ড্রু কিশোর। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে ১০ লাখ টাকা অনুদান দেন। কিন্তু চিকিৎসা শুরুর পর জানা যায়, অ্যান্ড্রু কিশোরকে ছয় ধাপে মোট ২৪টি কেমোথেরাপি দিতে হবে, যার প্রতিটির খরচ ৯ লাখ টাকা। সব মিলিয়ে শিল্পীর চিকিৎসা ব্যয় দাঁড়ায় দুই কোটি টাকারও বেশি।

এই বিপুল অর্থ জোগাড় করতে অ্যান্ড্রু কিশোরকে তার রাজশাহীর একটি ফ্ল্যাটসহ বেশ কিছু সম্পত্তি বিক্রি করতে হয়। তাতেও সংকুলান হয়নি। এই অবস্থায় তার চিকিৎসায় এগিয়ে আসেন দেশের বেশ কয়েকজন বড় তারকা। এ ছাড়া বাংলাদেশি প্রবাসীরাও ফেসবুকে গ্রম্নপ খুলে অ্যান্ড্রু কিশোরের চিকিৎসার জন্য অর্থ জোগাড় করেন।

সবার সহযোগিতায় অবশেষে ক্যান্সার জয়ের দ্বারপ্রান্তে দেশসেরা গায়ক অ্যান্ড্রু কিশোর। কিন্তু করোনার জেরে ঘোষিত লকডাউনের কারণে তিনি দেশে ফিরতে পারছেন না। আপাতত তাকে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালেই চিকিৎসকদের ফলোআপে থাকতে হচ্ছে। সেখানে অ্যান্ড্রু কিশোরের পাশে রয়েছেন স্ত্রী লিপিকা