৮২ কোটি ডলার বিক্রি, অর্ধেকই কিনেছে অগ্রণী ব্যাংক

2

ডলার বিক্রি করেই চলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ঈদের ছুটির আগে শেষ কর্মদিবস বুধবারও ব্যাংকগুলোর কাছে এক কোটি ডলার বিক্রি করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের ১৯ মে পর্যন্ত (২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে ২০২০ সালের ১৯ মে) আন্তঃব্যাংক মুদ্রার বাজার দরে ৮২ কোটি ২০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত অগ্রণী ব্যাংকের কাছেই প্রায় অর্ধেক; ৩৬ কোটি ডলারের মতো বিক্রি করা হয়েছে।

গত এপ্রিল মাসে বিক্রি করা হয়েছিল ২৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার। এর মধ্যে অগ্রণী ব্যাংক কিনেছিল অর্ধেকেরও বেশি; ১৩ কোটি ৯০ লাখ ডলার। চলতি মাসের ১৯ মে পর্যন্ত পাঁচ কোটি ৯০ লাখ ডলার ব্যাংকগুলোর কাছে বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরও অর্ধেকের বেশি কিনেছে অগ্রণী ব্যাংক।

বুধবার আন্তঃব্যাংক মুদ্রার বাজারে প্রতি ডলারের দর ছিল ৮৪ টাকা ৯৫ পয়সা। গত কয়েক মাস ধরে এই একই জায়গায় ‘স্থির’ রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রা ডলারের দর। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান এসব তথ্য জানিয়ে বলেন, বাজারের চাহিদা মেটাতেই ডলার ছাড়া হচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাজই এটি।

যখন বাজারে ডলারের সরবরাহ বাড়বে তখন কিনবে। আর যখন প্রয়োজন হবে অর্থাৎ চাহিদা বাড়বে তখন বিক্রি করবে। বাজার স্বাভাবিক বা স্থিতিশীল রাখতে বরাবরই এই কাজটি করে থাকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, মূলত জ্বালানি তেল এবং এলএনজি (তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস) আমদানির এলসি খুলতেই (ঋণপত্র) এখন বেশি ডলার ব্যয় হচ্ছে। আর এর সিংহভাগই করছে অগ্রণী ব্যাংক।