৪ ঘন্টার মধ্যে ৩ চিকিৎসকের মৃত্যু

9

করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ৩ চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে তাদের মৃত্যু হয়।

এরমধ্যে বুধবার সকাল ৮টায় কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের অবসরপ্রাপ্ত সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. আশরাফুজ্জামান। প্রায় একই সময়ে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান ওই হাসপাতালের সাবেক পরিচালক ডা. মো. শাহ আব্দুল আহাদ।

ডা. আশরাফুজ্জামানের বয়স হয়েছিল ৬১ বছর, আর ডা. শাহ আবদুল আহাদের বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। ডা. আব্দুল আহাদ বিএমএ দিনাজপুর শাখার সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

চিকিৎসকদের সংগঠন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন-বিএমএ ঢাকা ও দিনাজপুরের দুই চিকিৎসক মারা যাওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এছাড়া বুধবার ভোর ৪টার দিকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় একই হাসপাতালের সিনিয়র আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. নুরুল হক মারা যান।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ৩৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ডা. নুরুল হক গত ১৯ বছর ধরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন।

ডা. নুরুল হকের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছে ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপন্সসিবিলিটির (এফডিএসআর)।

প্রসঙ্গত, এ পর্যন্ত দেশে করোনায় ৩৭ জন চিকিৎসক মারা গেলেন। এ ছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৫ চিকিৎসক।