তাঁতীবাজার থেকে আন্তর্জাতিক স্বর্ণ চোরাচালানের অন্যতম হোতা গ্রেপ্তার

39

গত ১০ জুন বিকেলে পুরান ঢাকার তাঁতীবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে শ্যাম ঘোষকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১১। তবে বৃহস্পতিবার বিষয়টি জানিয়েছে ব্যাটালিয়নটি।

গ্রেপ্তার ব্যক্তি হলেন- শ্যাম ঘোষ। তার কাছ থেকে ৬টি স্বর্ণ বার ও নগদ ৩০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, ২০১৮ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার দোহারের মৈনট ঘাট এলাকা থেকে অবৈধ স্বর্ণ পাচারকালে ৯ কোটি টাকা মূল্যের ২০০টি স্বর্ণের বারসহ আন্তর্জাতিক স্বর্ণ চোরাচালান চক্রের ৫ জন সদস্যকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই চোরাচালান আইনে মামলা হয়। পরে আদালতে গ্রেপ্তারকৃতদের ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে শ্যাম ঘোষের নাম জানা যায়। এরপর দীর্ঘদিন পলাতক অভিযুক্ত শ্যামকে গ্রেপ্তারে বেশ কয়েকটি স্থানে অভিযান চালানো হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত ১০ জুন তাঁতীবাজার এলাকা থেকে শ্যাম ঘোষকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং ওই মামলায় তাকে দুই দফায় মোট ৬ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যায়।

শ্যাম ঘোষ আর্ন্তজাতিক স্বর্ণ চোরাচালানের একটি সেন্ডিকেটের মূলহোতা। এছাড়াও স্বর্ণ চোরাচালান সম্পর্কে শ্যাম ঘোষ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন। তার তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৪ জুন তাঁতীবাজারে তার দোকানে অভিযান পরিচালনা করে চোরাচালানকৃত ৬টি স্বর্ণের বার ও নগদ ৩০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা ইমরান উল্লাহ সরকার আরও জানান, গ্রেপ্তার শ্যাম ঘোষকে রিমান্ড শেষে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যগুলো যাচাই-বাচাই করা হচ্ছে। স্বর্ণ চোরাচালানে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত ও তাদের গ্রেপ্তারের জন্য র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।