বার্সার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন মেসি

9

ঘরের মাঠে ১০ জনের ওসাসুনার কাছে হারের পর গর্জে উঠলেন লিয়োনেল মেসি। লা লিগায় বার্সেলোনার হারের রাতেই ভিয়ারিয়েলকে হারিয়ে লা লিগা নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। দলের পারফরম্যান্স নিয়ে এতটাই হতাশ বার্সেলোনা অধিনায়ক যে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও কোন আশা দেখছেন না।

লা লিগার শেষ ছয় ম্যাচের মধ্যে এই নিয়ে তৃতীয় বার বিপক্ষকে হারাতে পারল না বার্সেলোনা। বৃহস্পতিবার রাতে ম্যাচের ১৫ মিনিটেই পিছিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা। হোসে আমাজ করেছিলেন গোল। ৬২ মিনিটে সমতা ফিরিয়েছিলেন মেসি। যা আশা আমদানি করেছিল সমর্থকদের মনে। ম্যাচের যখন ১৩ মিনিট বাকি রয়েছে, তখন ওসাসুনার এরিক গালেগো লাল কার্ড দেখে। দশ জনে হয়ে পড়ে ওসাসুনা।

কিন্তু, তার পরও গোল করতে পারেনি বার্সা। বরং, ইনজুরি টাইমে রবার্তো তোরেসের গোলে জয় ছিনিয়ে নেয় ওসাসুনা। লা লিগায় আর একটা ম্যাচ বাকি রয়েছে বার্সার। যা জিতলে সর্বাধিক ৮২ পয়েন্টে পৌঁছতে পারবে মেসির দল। অন্য দিকে, জিনেদিন জিদানের কোচিংয়ে রিয়েল মাদ্রিদ পৌঁছতে পারে ৮৯ পয়েন্টে। রিয়ালের এখন পয়েন্ট ৮৬। আর বার্সা এখন দাঁড়িয়ে ৭৯ পয়েন্টে। ফলে, রিয়াল জিতেই গিয়েছে লা লিগা।

এই হারের পর চাপ বাড়ছে বার্সার কোচ সেতিয়েনের উপর। জানুয়ারিতে যখন তিনি দায়িত্ব নিয়েছিলেন, তখন বার্সা লিগ তালিকায় শীর্ষে ছিল। ক্লাব প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন যে, পরের মাসে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার সময়ও সেতিয়েনই থাকছেন কোচ। শেষ ১৬ পর্যায়ে ওই ম্যাচে ঘরের মাঠে নাপোলির বিরুদ্ধে খেলবে বার্সা। প্রথম দফায় ১-১ ছিল ফল।

মেসি অবশ্য রীতিমতো হতাশ। তিনি বলেছেন, “শিবিরের হাবভাব হল যেন চেষ্টা করেও জেতা যায়নি। তবে অনেক ক্ষেত্রে আমরা নিজেদের সেরাটা দিতে পারিনি। আর প্রথমার্ধে ওরা আমাদের চেয়ে ভাল খেলেছে। অনেক দিন আগেই বলেছিলাম যে, এ ভাবে খেলতে থাকলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা খুব কঠিন। এমনকি নাপোলির বিরুদ্ধেও হেরে যাব আমরা।”

এলএম টেন সোজাসুজি বলেছেন, “এ ভাবে মরসুম শেষ করতে চাইনি আমরা। তবে আমরা আগাগোড়া এমনই আগোছালো খেলেছি। খুব দুর্বল, তাগিদহীন দেখিয়েছে আমাদের। অনেক পয়েন্ট নষ্ট করেছি আমরা। এই হারে সেগুলোই প্রতিফলিত। আমাদের নিজেদেরকেই সমালোচনার দৃষ্টিতে দেখতে হবে। আমরা বার্সা। আমাদের জিততে হবে সবকিছুই। মাদ্রিদের দিকে তাকালে চলবে না। ওরা নিজেদের কাজটা করেছে, কিন্তু আমরা ওদের অনেক সাহায্যও করেছি। এ বার সামনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। যা জিততে হলে আমাদের অনেক বদলাতে হবে। যদি এ ভাবেই খেলতে থাকি, তবে নাপোলির বিরুদ্ধেও হারতে হবে।”

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা