প্রবাসীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন ৩ দিন

8

প্রবাসীদের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের সময়সীমা ১৪ থেকে কমিয়ে তিন দিন করা হয়েছে। যারা করোনার দুই ডোজ ভ্যাকসিন নিয়ে দেশে আসবেন তাদের ক্ষেত্রে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকার বাধ্যবাধকতাও থাকবে না। তবে ভারত থেকে স্থলবন্দর দিয়ে দেশে ফিরলে ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শনিবার থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে বলে শুক্রবার জানিয়েছে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান বলেন, ‘আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভায় প্রাথমিকভাবে পাঁচ দিনের কোয়ারেন্টিনে আলোচনা হলেও তিন দিনের কোয়ারেন্টিনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কোয়ারেন্টিনের বিষয়টা শনিবার থেকেই কার্যকর হবে। এছাড়া ২৫ এপ্রিল থেকে কুয়েত ও বাহরাইনগামী প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ফ্লাইটের অনুমতি দেয়া হয়েছে।’

বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, প্রবাসীদের মধ্যে যেসব যাত্রী করোনার দুই ডোজ ভ্যাকসিন নেয়া থাকবে এবং করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকবে, তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে না। তারা বাড়িতে গিয়ে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। স্থানীয় প্রশাসন তাদের হোম কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি নিশ্চিত করবে।

তবে যেসব যাত্রী ভ্যাকসিনের একটি ডোজ নিয়েছেন অথবা নেননি এবং করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে দেশে আসবেন, তাদেরই কেবল তিন দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হবে। তিন দিন পর তাদের করোনা টেস্ট করানো হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলে বাকি ১১ দিন তাদের বাড়িতে গিয়ে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।