hasina

কুষ্টিয়ায় সাব-রেজিস্ট্রার হত্যা মামলায় চারজনের মৃত্যুদণ্ড

14

কুষ্টিয়ায় সদ্য সাব রেজিস্ট্রার চাঞ্চল্যকর নূর মোহাম্মদ শাহ হত্যা মামলায় চার আসামির ফাঁসি এবং অপর এক আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১ টায় কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাজুল ইসলাম এ রায় প্রদান করেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত প্রত্যেক আসামিই আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সাইদুল ইসলাম (৩৭), ফারুক হোসেন (৩৮), কামাল শেখ (৪০) এবং মশিউল আলম (৪০)। একমাত্র যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত অপর আসামি হচ্ছেন মনোয়ার হোসেন ডাবলু (৩৮)। দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে সাইদুল ইসলাম মিরপুর রেজিষ্ট্রি অফিসের নকল নবিস, কামাল শেখ একই অফিসের পিয়ন এবং ফারুক হোসেন জেলা সাবরেষ্ট্রারের পিয়ন হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

কুষ্টিয়া জজ কোর্টেও পিপিএ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর রাত ১০টারদিকে দুর্বৃত্তরা কুষ্টিয়া সদর সাব রেজিষ্ট্রার নূর মোহাম্মদ শাহকে (৫০) শহরের আড়ূয়াপাড়া এলাকার বিসি ষ্ট্রিট সড়কের হানিফ আলীর বাড়ির তিনতলা ভাড়া বাসায় হাত-পা ও মুখ বেঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করে। নূর মোহাম্মদ শাহের দেশের বাড়ি কুঁড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার মৌলাগ্রামে। কুষ্টিয়া শহরের আড়ূয়াপাড়া এলাকার হানিফ আলীর বাড়িতে তিনি বাসা ভাড়া নিয়ে একাই বসবাস করতেন।

হত্যাকাণ্ডের পরেরদিন নিহতের ছোট ভাই কামরুজ্জামান বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় অজ্ঞাত নামা আসামিদের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার চারদিন পর পুলিশ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত চারজনকে গ্রেফতার কওে এবং তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুড়ি, রশিসহ বিভিন্ন আলামত জব্দ করে। পওে আসামিরা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদানকরে।

সরকারপক্ষের আইনজীবী এই রায়কে ঐতিহাসিক হিসেবে গন্য কওে বলেন এই রায়ের মাধ্যমে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠীত হয়েছে। তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী এ্যাড. জহুরুল ইসলামের দাবি যেহেতু এই মামলার কোন চাক্ষুস সাক্ষী ছিলোনা। তাই এই রায় তারা মানতে পারছেন না। উচ্চ আদালতের মাধ্যমে তারা এই মামলায় সুবিচার পাবেন বলেন জানান।